SIP-তে বিনিয়োগ কি সম্পূর্ণ নিরাপদ? অবশ্যই জেনে নিন এই কয়েকটি বিষয়!

আপনি কি এসআইপিতে (SIP) বিনিয়োগ করতে চান? তাহলে মিস করবেন না এই প্রতিবেদন!

2
136
SIP-তে বিনিয়োগ কি সম্পূর্ণ নিরাপদ? অবশ্যই জেনে নিন এই কয়েকটি বিষয়!
SIP-তে বিনিয়োগ কি সম্পূর্ণ নিরাপদ? অবশ্যই জেনে নিন এই কয়েকটি বিষয়!

বর্তমান সময়ে দাঁড়িয়ে অনেকেই কিন্তু বিনিয়োগ করার জন্য একটা ভালো মাধ্যম খুঁজছেন। আর্থিক দিকে একটি সামঞ্জস্য বজায় রাখার জন্য তা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই পাঠক বন্ধুদের জন্য আজ আমরা নিয়ে চলে এসেছি একটি বিশেষ প্রতিবেদন যা হয়তো আপনাকে এই বিনিয়োগের কাজে কিছুটা হলেও সহায়তা করতে পারে। আজ আমরা আলোচনা করব SIP সম্পর্কে।এসআইপি মানে সিস্টেমেটিক ইনভেস্টমেন্ট প্ল্যান। মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগ করার সবচেয়ে সহজ পদ্ধতি।

যদি বিনিয়োগকারীর কাছে কোন মোটা অংকের টাকা না থাকে সেক্ষেত্রে কিন্তু এখানে সহজেই বিনিয়োগ করা যেতে পারে।মিউচুয়াল ফান্ডের সঙ্গে এসআইপি সেটআপ করে দিলে অ্যাকাউন্ট থেকে প্রতি মাসে নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা ডেবিট হয়ে যায়। বিনিয়োগ চলতে থাকে, মূলধন বাড়তে থাকে। কিন্তু এই বিনিয়োগের আগে আপনাকে অবশ্যই কয়েকটি ব্যাপার নিয়ে পরিষ্কার হতে হবে, তার মধ্যে প্রথমেই প্রশ্ন আসে যে SIP কি আদৌ নিরাপদ? সত্যিই কি এখানে টাকা রাখলে কোনরকমের কোন অসুবিধা হতে পারে?

আরও পড়ুন- RBI : সমস্যার মুখোমুখি পেটিএম পেমেন্টস ব্যাংক, নিয়ম ভাঙ্গার অভিযোগে বড়সড় জরিমানা করল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া

এই প্রশ্নের উত্তর হচ্ছে যে মিউচুয়াল ফান্ডে তারা বিনিয়োগ করতে চান তাদের জন্য এসআইপি সবথেকে বেশি নিরাপদ ক্ষেত্র।আসলে মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগ করতে চাইলে বাজার সম্পর্কে জ্ঞান থাকা প্রয়োজন। একে বলে ‘টাইমিং দ্য মার্কেট’। কিন্তু এসআইপির মাধ্যমে বিনিয়োগ করলে ‘বাজারের সময়’ নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। এখানে বিনিয়োগকারীকে প্রত্যেক মাসে খুব সামান্য টাকায় বিনিয়োগ করতে হয় তাই খুব একটা গায়ে লাগেনা। মাসের প্রথমে হোক বা শেষে এই টাকা নিয়ে একেবারে নিশ্চিন্তে থাকা যায় এবং কোন রকমের মানসিক দুশ্চিন্তায় পড়তে হয় না।

এসআইপির পরিমাণ কিন্তু আপনারা চাইলে বাড়াতে অথবা কমাতে পারেন। তবে এই প্রক্রিয়াটি খুব একটা সহজ নয় অর্থাৎ বেশ কিছু জটিলতা রয়েছে। কিন্তু এই জটিলতারও একটা সহজ সমাধান রয়েছে আমাদের পাঠক বন্ধুদের জন্য।বিনিয়োগকারী যত টাকা বাড়াতে চান, সেই পরিমাণ দিয়ে একটা নতুন এসআইপি শুরু করতে পারেন। ধরা যাক কেউ প্রতি মাসে ১০ হাজার টাকার এসআইপি করেছেন।তিনি সেটা বাড়িয়ে ১২ হাজার করতে চান। এখন তাঁকে ওই মিচুয়াল ফান্ডেই ২ হাজার টাকার নতুন এসআইপি করতে হবে।

আরও পড়ুন- SIP : এসআইপির কিস্তি বাদ পড়ে গেছে? এবার কি করনীয়!

যারা এই এসআইপির ব্যাপারে আগ্রহী রয়েছেন তাদের উদ্দেশ্যে বলব যে অবশ্যই আপনারা কিন্তু এটি দীর্ঘ মেয়াদী ভিত্তিতেই করার চেষ্টা করবেন যাতে বেশি সুবিধা লাভ করতে পারেন। যদি আপনারা দীর্ঘ মেয়াদী এসআইপিতে বিনিয়োগ করেন সেক্ষেত্রে কিন্তু ইন্টারেস্ট অর্থাৎ সুদের পরিমাণ অনেকটাই বেড়ে যাবে। পাশাপাশি আপনাকে বাজারের অস্থিরতা নিয়েও খুব একটা সমস্যায় পড়তে হবে না অর্থাৎ আপনার আর্থিক দিকের সামঞ্জস্য এই বিনিয়োগে একেবারে সঠিক অবস্থায় সর্বদা বজায় থাকবে। এ ধরনের আরো ফিন্যান্সিয়াল আপডেট পেতে চাইলে আমাদের অন্যান্য প্রতিবেদন গুলোর উপর নজর রাখতে থাকুন।