একবার খেয়ে দেখুন এই বিশেষ জিনিস, সহবাসের আগে আর প্রয়োজন হবে না অন্য ট্যাবলেট খাওয়ার!

সহবাসের আগে বিশেষ কোনো শারীরিক সমস্যা হচ্ছে? যদি হয়ে থাকে তাহলে আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি মিস করবেন না!

0
136
একবার খেয়ে দেখুন এই বিশেষ জিনিস, সহবাসের আগে আর প্রয়োজন হবে না অন্য ট্যাবলেট খাওয়ার!
একবার খেয়ে দেখুন এই বিশেষ জিনিস, সহবাসের আগে আর প্রয়োজন হবে না অন্য ট্যাবলেট খাওয়ার!

প্রসঙ্গত সহবাসের আগে অনেকেই কিন্তু নানান রকমের শারীরিক সমস্যার মুখোমুখি হয়ে থাকেন। যদি আপনিও এই সমস্যার একজন ভুক্তভোগী তাহলে আমাদের আজকের এই প্রতিবেদনটি অবশ্যই মনোযোগ সহকারে শেষ পর্যন্ত পড়ে নিন। একবার যদি আপনারা এই বিশেষ জিনিসটি সহবাসের আগে খেয়ে নিতে পারেন তাহলে কিন্তু আর অন্য কোন রকমের উত্তেজক ট্যাবলেট আপনাদের ব্যবহার না করলেও চলবে। এই বিশেষ উপকরণ টির নাম হল মধু। কমবেশি আপনারা হয়তো আগেও মধু খেয়েছেন তবে এর গুনাগুন সম্পর্কে আপনারা অবগত নয়। নিশ্চয়ই আপনারাও ভাবছেন যে সহবাসের সঙ্গে মধুর সম্পর্ক কি? চলুন একটু বিশদে আলোচনা করে নেওয়া যাক।

মধু হলো একটি মিষ্টি জাতীয় আঠালো পদার্থ, যা মৌমাছিরা ফুল থেকে পুষ্প রস হিসেবে সংগ্রহ করে থাকে। প্রাকৃতিক নিয়মে এটি মধুতে পরিণত হয় এবং মৌচাকে সংরক্ষিত থাকে। খাবার হিসেবে কিন্তু এর ব্যাপক গুনাগুন রয়েছে। সর্দি কাশি থেকে শুরু করে অনেক অসুখেই কিন্তু মধু খাওয়ার কথা বলা হয়ে থাকে। অনেক রান্নাতেও এটিকে ব্যবহার করা হয়। পাশাপাশি সহবাসের ক্ষেত্রেও অনেকটা উত্তেজক ট্যাবলেট এর মতই কাজ করে মধু। প্রাচীনকাল থেকেই দেশ-বিদেশের মানুষ মধুর সঙ্গে পরিচিত রয়েছেন। গরম জলে অথবা চায়ের সাথে মধু খাওয়ার অভ্যাস হয়তো আপনাদের মধ্যেও অনেকের রয়েছে। একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে বেশিরভাগ এশিয়ান দেশেই মধু খাবার রয়েছে ব্যাপক প্রচলন।

সহবাসের আগে আর প্রয়োজন হবে না অন্য ট্যাবলেট খাওয়ার

আরও পড়ুন-  আপনার পার্টনার আপনাকে কতটা পছন্দ করে? জেনে নিন তার মনের সমস্ত কথা!

মধুর পুষ্টিগত গুনাগুন:

মধুতে প্রায় ৪৫টিরও বেশি খাদ্য উপাদান থাকে। সাধারণত পুষ্টি উপাদান হিসাবে ফুলের পরাগের মধুতে থাকে ২৫ থেকে ৩৭ শতাংশ গ্লুকোজ, ৩৪ থেকে ৪৩ শতাংশ ফ্রুক্টোজ, ৫-১২ শতাংশ মন্টোজ, ০.৫ থেকে ৩.০ শতাংশ সুক্রোজ থাকে। এছাড়াও জানা গিয়েছে যে মধুর মধ্যে ২৮ শতাংশ খনিজ লবণ, ২২ শতাংশ অ্যামাইনো এ’ সিড এবং ১১ ভাগ এনকাইম বর্তমান। এতে সাধারণত কোন চৰ্বি ও প্রোটিন নেই। প্রতি ১০০ গ্রাম মধুতে থাকে ২৮৮ গ্রাম ক্যালরি। সুতরাং আপনারা বুঝতেই পারছেন যে এর খাদ্য গুনাগুন কত খানি! অতএব সহবাসের আগে আপনারা কিন্তু সহজেই এই মধু গ্রহণ করতে পারেন। তবে সেটা যেন অবশ্যই কোনরকম ভেজাল যুক্ত না হয়।

খাঁটি মধু চিনবেন কিভাবে?

বাজারে কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই ভেজাল যুক্ত মধু বিক্রি করা হয়ে থাকে। এই ধরনের মধু খাবার হিসেবে গ্রহণ করলে কিন্তু আপনাদের শরীরের কোনোরকম লাভ হবে না। খাঁটি মধু চিনে নেওয়ার বিশেষ কিছু উপায় রয়েছে যা নিম্নে আলোচনা করা হলো।

  1. খাঁটি মধুতে কখনো কোন কটু গন্ধ থাকে না।
  2. মানুষের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক কোনো বিষাক্ত উপাদান প্রাকৃতিক গাছে থাকলেও তার কোন প্রভাব মধুতে থাকে না।
  3. মধু সংরক্ষণে কোনো প্রকার প্রিজারভেটিভ জাতীয় উপাদান ব্যবহৃত হয় না। কারণ মধু নিজেই প্রিজারভেটিভ গুণাগুণ সম্পন্ন পুষ্টিতে ভরপুর।
  4. আপনি খাঁটি মধু পরীক্ষা করতে চাইলে একটা কাজ করতে পারেন। আপনি খাঁটি মধু কিছুটা পরিমাণে নিয়ে একটা জলের গ্লাসে ড্রপ আকারে ছেড়ে দিন খাঁটি মধু হবে ড্রপ অবস্থায়ই গ্লাসের নিচে চলে যাবে। যদি না যায় বুঝে নেবেন এতে কোনরকমের ভেজাল রয়েছে।

আরও পড়ুন- Viral Video : ‘তোমাকে দোকান থেকে কিনে এনেছি’! মালিকের কথা শুনে ছল ছল হল পোষ্যের চোখ