Health Tips : মাথাব্যথার ক্ষেত্রে আপনার কি রয়েছে এই বিশেষ কয়েকটি লক্ষণ, তাহলে মিস করবেন না এই প্রতিবেদন!

Health Tips : এই কারণেও হতে পারে আপনার মাথা ব্যথা? জেনে নি ন কিছু প্রয়োজনীয় তথ্য!

0
115
Health Tips : মাথাব্যথার ক্ষেত্রে আপনার কি রয়েছে এই বিশেষ কয়েকটি লক্ষণ, তাহলে মিস করবেন না এই প্রতিবেদন!
Health Tips : মাথাব্যথার ক্ষেত্রে আপনার কি রয়েছে এই বিশেষ কয়েকটি লক্ষণ, তাহলে মিস করবেন না এই প্রতিবেদন!

কমবেশি আমরা অনেকেই কিন্তু ঘনঘন মাথাব্যথা সমস্যায় ভুগে থাকি। বিভিন্ন কারণেই এই মাথা ব্যাথা হতে পারে যার মধ্যে অন্যতম হলো দৃষ্টি সমস্যা। বহু দেশী এবং বিদেশী চিকিৎসক আর গবেষকেরা নানান উপসর্গ পরীক্ষা করে এই বিষয়ে বিভিন্ন পরামর্শ দিয়েছেন আর অনেক নির্দেশ জানিয়েছেন।। লক্ষ্য করা যায় দৃষ্টিশক্তির কোনো রকম ত্রুটি থাকলে অনেক ক্ষেত্রেই কিন্তু মাথা ব্যথার সমস্যা লক্ষ্য করা যায়। তাই দীর্ঘ সময় ধরে যদি আপনি মাথা ব্যথায় ভুগছেন সেক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে তার জন্য একটা সঠিক চিকিৎসা পরিকল্পনা তৈরি করতে হবে এবং নিজেদের দৃষ্টি শক্তি মূল্যায়ন করতে হবে। চলুন কিছু বিশেষ ব্যাপার এই প্রসঙ্গে জেনে নেওয়া যাক।

দৃষ্টির জন্য মাথাব্যথা হওয়ার কারণ কি?

দৃষ্টিশক্তির কারণে কিন্তু বিভিন্ন সময়ে মাথাব্যথা হতে পারে যার সম্ভাব্য কয়েকটি কারণ আমরা বিস্তারিতভাবে আলোচনা করতে চলেছি।।

১) চোখের স্ট্রেন:

অনেক ক্ষেত্রেই আমাদের চোখের উপরে নানান রকম কারণে বেশি চাপ পড়ে গেলে কিন্তু মাথা ব্যথা হতে পারে। লক্ষ্য করবেন চোখের মধ্যে যদি চুলকানি বা দৃষ্টি ঝাপসা হয়ে যাওয়া বা একটা ভারী ভাব লক্ষ্য করা যায় তাহলে কিন্তু আপনার এই সমস্যা হয়েছে বোঝা যাবে। অত্যন্ত বেশি উজ্জ্বল কম্পিউটার বা ফোনের স্ক্রিনের দিকে তাকানো, আবছা আলোতে কাজ করা বা এক ধাক্কায় স্ক্রিনের দিকে বেশিক্ষণ তাকিয়ে থাকার ফলে এই সমস্যা হয়। এই ক্ষেত্রে আপনারা কিন্তু একটা বিশেষ পদ্ধতি অবলম্বন করতে পারেন যেটাকে ২০-২০-২০ নিয়ম বলা হয়ে থাকে অর্থাৎ প্রতি কুড়ি মিনিটে রোগীদের কুড়ি সেকেন্ডের জন্য বিরতি নেওয়া উচিত এবং কুড়ি ফুট দূরে থেকে যে কোন জিনিস দেখা উচিত।

২) চোখের মাইগ্রেন –

নিয়মিত মাইগ্রেনের থেকে আলাদা, অকুলার মাইগ্রেন সাময়িকভাবে ঝলকানি, অন্ধত্ব, আলোর সংবেদনশীলতা, বমি বমি ভাব এবং বমি বমি ভাব তৈরি করতে পারে। যদিও বিরল, চোখের মাইগ্রেনের চিকিৎসা না করা হলে স্থায়ী দৃষ্টি সমস্যা হতে পারে।

৩)চোখের অবস্থা –

রোগীরা চোখের বেশ কয়েকটি রোগে ভুগতে পারে যা তাদের ভালোভাবে দেখার ক্ষমতাকে প্রভাবিত করে। এগুলি হালকা থেকে গুরুতর পর্যন্ত হতে পারে, যেমন গ্লুকোমা, ছানি, টেম্পোরাল আর্টেরাইটিস বা অপটিক স্নায়ুর সমস্যা। মাথাব্যথা ছাড়াও, এই অবস্থাগুলি বিভিন্ন ধরনের অস্বস্তিকর উপসর্গের কারণ হতে পারে। আপনার পরীক্ষার সময়, আপনি যদি চোখের চাপ বা দ্বিগুণ দৃষ্টি অনুভব করেন তবে দয়া করে আমাদের জানান।

Read More: Weight Loss Tips : জল খেলেই কমে যাবে ওজন, শুধু জানতে হবে আসল কায়দা

৪) প্রেসক্রিপশন সমস্যা –

কখনও কখনও, একটি ভুল প্রেসক্রিপশন মাথাব্যথা তৈরি করতে পারে। আপনার চোখের পরীক্ষায়, আমরা আপনার প্রেসক্রিপশনের স্তর পরীক্ষা করি এবং নিশ্চিত করি যে আপনার 20/20 দৃষ্টি আছে। আপনার দৃষ্টিভঙ্গিতে সামান্য পরিবর্তন একটি উল্লেখযোগ্য পার্থক্য আনতে পারে।

৫) মনোকুলার বা বাইনোকুলার ভিশন –

একচেটিয়া দৃষ্টি রোগীদের একটি চোখের উপর নির্ভর করে বা তার পক্ষে থাকে। বাইনোকুলার দৃষ্টি ঘটে কারণ চোখ একসাথে চলতে অসুবিধা হয়। এই অবস্থার যেকোনো একটির সাথে, রোগীরা গভীরতার উপলব্ধি সমস্যা অনুভব করতে পারে।

Read More: Weight loss : লেবুর রসের সাহায্যেও নাকি ওজন কমে! সত্যি জানলে চমকে উঠবেন আপনিও

তাই অবশ্যই এবার থেকে ঘনঘন মাথা ব্যথা সমস্যায় ভুগলে আপনারা অবশ্যই আমাদের এই প্রতিবেদনটি একবার চোখ বুলিয়ে দ্রুত চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নিজেদের সমস্যা সম্পর্কে অবগত হবেন। দেখবেন এতে অনেকটাই রেহাই পেতে পারেন শুরুর থেকেই।