Health Tips : জেনে নিন সুস্থ, সুখী এবং নিরাপদ জীবন যাপনের বিশেষ কিছু টিপস

0
98
find out how to be healthy
how to be healthy

আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা একটা দারুণ বিষয়ে আলোচনা করতে চলেছি। কর্মব্যস্ত জীবনে দাঁড়িয়ে এই প্রত্যেকটি ছোট থেকে বড় ব্যাপার যদি আপনারা নজরে রাখতে পারেন তাহলে সুস্থ এবং নিরাপদ জীবন যাপন থেকে আপনাদের কেউ বাঁচাতে পারবে না। দ্রুত ওজন কমানোর সহজ উপায় থেকে শুরু করে সুন্দর ফিটনেস, নিরাপদ জীবন সবকিছুই পাবেন আপনি এই প্রতিবেদনে। তবে অবশ্যই তার আগে কিছু রেজোলিউশন আপনাকে গ্রহণ করতে হবে এবং সেগুলোকে পূরণ করতে হবে। সম্প্রতি কিছুদিন আগেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে উঠেছিল এমন এক সেনাবাহিনীর কথা যিনি একুশ বছর মার্কিন সেনাবাহিনীতে কাটিয়েছিলেন এবং সেখানে নিজের মাথায় ফিটনেস ড্রিল করার কথা জানিয়েছিলেন। সেই অভিজ্ঞতা থেকেই আজকে কিছু কথাও আপনাদের সামনে তুলে ধরব আমি।

নিরাপদ জীবন যাপনের বিশেষ কিছু টিপস

১) জীবনে নতুন কিছু শুরু করার আগে আপনাকে একজন ভালো ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করা উচিত যদি আপনি শারীরিকভাবে অস্বস্তি বোধ করে থাকেন। একটা ভালো ফিটনেস লেয়ার তৈরি করতে কিন্তু ভালো মস্তিষ্কের প্রয়োজন হয়ে থাকে। বিশেষ করে ধরুন আপনি ওজন কমানোর কথা ভাবছেন এবং নতুন কোন উপায় চেষ্টা করছেন। সেক্ষেত্রে অবশ্যই আগে থেকে কোন পরিচিত ব্যক্তির অনুপ্রেরণা নিতে বা ডাক্তারের পরামর্শ নিতে ভুলবেন না।

২) সুস্থ স্বাভাবিক জীবন যাপনের একটি রহস্য রয়েছে। সব সময় চিন্তামুক্ত থাকতে হবে এবং নিজেকে একেবারে দূষণমুক্ত হাওয়ার মতোই খোলা রাখতে হবে। দিনে অন্ততপক্ষে পাঁচ থেকে দশ মিনিট হলেও ওয়ার্ক আউট করুন। যতটা সম্ভব দূষণমুক্ত বায়ু গ্রহণ করার চেষ্টা করুন। ওজন কমানোর জন্য কিন্তু ছোটখাটো ব্যাপার ও ভীষণ পরিবর্তন আনতে পারে। আপনি চাইলে কঠোর ডায়েট না মেনেও কিন্তু এটাকে চালিয়ে যেতে পারেন। লিফটের পরিবর্তে সিঁড়ি ব্যবহার করুন অথবা কাজের জায়গা থেকে বেশ কিছুটা দূরে গিয়ে গাড়ি পার্ক করুন।

৩) ওজন কমানোর জন্য কোন জাদুর বুলেট নেই। আপনাকে নিজের কাছেই প্রতিশ্রুতি বদ্ধ হতে হবে যে আপনি পারবেন। সুস্থ থাকাটা জীবনের অন্যতম লক্ষ্য করুন। কোনরকম গ্রুপে যোগ দিয়ে সেখানে নিজের অনুশীলন গুলো ভাগ করে নিতে পারেন।

Read More: Health Tips : জেনে নিন শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর কিছু দুর্দান্ত টিপস, উপকার পাবেন সবাই

৪) বিভিন্ন শরীরের ধরন উচ্চতা অনুযায়ী শরীরের বিভিন্ন ওজন হয়ে থাকে। এগুলো সম্পর্কে জ্ঞান লাভ করুন এবং নিশ্চিত করুন যে আপনি সঠিক পুষ্টির পাশাপাশি পেশী তৈরিতেও কাজ করছেন। মনে রাখবেন সহজ সরল এবং নিরাপদ জীবন যাপন কিন্তু আপনাকে একমাত্র এই ফিটনেস দিতে পারে।

৫) ধূমপান যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন বা অনেক এনার্জি ড্রিঙ্ক যেগুলোতে পরিপূরক থাকে সেগুলো ত্যাগ করুন।। এগুলো সবই শুধুমাত্র চিনি অথবা অন্যান্য রাসায়নিকের সংস্পর্শে তৈরি। মদ্যপান সীমিত করুন অথবা ছেড়ে দিন। বৈজ্ঞানিকদের একাংশের মতে এই প্রত্যেকটা জিনিসই কিন্তু ওজন বাড়াতে ব্যাপক সহায়তা করে থাকে।। যদি আপনি কফি লাভার হয়ে থাকেন তাহলে এই ক্যাফিন গ্রহণ করা বন্ধ করে দিয়ে যতটা সম্ভব চা পান করার চেষ্টা করুন।

Read More: Health Tips : সুস্বাস্থ্য নিয়ে নো টেনশন! জেনে নিন কিছু সুষম এবং পুষ্টিকর খাদ্যের (Superfood) তালিকা

৬) সব সময় এমন খাবার খাওয়ার চেষ্টা করবেন যা প্রক্রিয়াজাত হয় না এবং তাজা। বেশিরভাগ মানুষের জন্য যদিও এই সুবিধা হয় না। তবে একবার ভালোভাবে চেষ্টা করে দেখতেই পারেন যাতে স্বাস্থ্যকর খাবার গ্রহণ করতে পারেন এবং নিজের শরীরের সমস্ত সমস্যার সমাধান করতে পারেন। মাঝে মাঝে মজাদার রেসিপি তৈরি করে নতুন খাবার বানানোর চেষ্টা করুন। পরিবারের সকলের সাথে মিলেমিশে এই কাজটি করুন এতে শুধুমাত্র আপনার শারীরিক স্বাস্থ্যের উন্নতি হবে তাই নয় মানসিক স্বাস্থ্য ভালো থাকবে।

৭) সকাল থেকে খাবার অল্প অল্প করে শুরু করলেও সন্ধ্যের দিক থেকে খাবার খাওয়াটা কমিয়ে দিন। রাতে ঘুমোতে যাবার অন্তত ঘন্টা তিনেক খাগে খাবার খাওয়ার চেষ্টা করুন। কোন খাবার গুলি আপনার জন্য স্বাস্থ্যকর সেটা আপনাকে দেখতে হবে এবং কোন খাবার আপনার জন্য কত ক্যালরি বাড়িয়ে তুলছে সেটার দিকেও নজর রাখতে হবে।