Breast cancer: ব্রেস্ট ক্যান্সার বা স্তন ক্যান্সার, কী লক্ষণ দেখে বোঝা যাবে? কীভাবে সাবধান হবেন

Breast cancer: স্তন ক্যানসারের এই সাধারণ লক্ষণগুলিই মহিলারা উপেক্ষা করে যান! কেন? জেনে নিন বিস্তারিত।

0
141
Breast cancer: ব্রেস্ট ক্যান্সার বা স্তন ক্যান্সার, কী লক্ষণ দেখে বোঝা যাবে? কীভাবে সাবধান হবেন
স্তন ক্যান্সার হওয়ার কারণ কি কি?

মারণব্যাধি বলতে আমরা কিন্তু সবার প্রথমেই ক্যান্সারের নাম নিতে পারি। বিগত বছরে আমাদের দেশে বহু মানুষ কিন্তু এই ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েই প্রাণ হারিয়েছেন। হয়তো তার মধ্যে আপনাদের অনেক প্রিয়জনরাও আছেন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য শরীরের বিভিন্ন স্থানে ক্যান্সার নিজের থাবা বসাতে পারে। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা পাঠক বন্ধুদের সঙ্গে আলোচনা করতে চলেছি স্তন ক্যান্সার সম্পর্কে। বর্তমান সময়ে দাঁড়িয়ে মহিলাদের মধ্যে একটি অত্যন্ত প্রচলিত ব্যাধি হচ্ছে এই স্তন ক্যান্সার।

যদি এই রোগের প্রাথমিক পর্যায় একে সনাক্ত করা যায় তাহলে আমরা অনেক মানুষকে এই রোগের হাত থেকে বাঁচাতে পারব। চলুন তাহলে আর দেরি না করে এই রোগের লক্ষণ থেকে শুরু করে অন্যান্য বিষয় এবং প্রতিকার সম্পর্কে একটু বিশদে জেনে নেওয়া যাক, যাতে তা সঠিক সময়ে কাজে লাগানো যায়। প্রতিবেদনের মূল পর্বে যাওয়ার আগে জানিয়ে রাখি,সমস্ত প্রকারের ক্যান্সারের সাধারণ বৈশিষ্ট্য হল আমাদের শরীরে কোষের অস্বাভাবিক, অনিয়মিত বৃদ্ধি এবং কোষ বিভাজন। ক্যান্সার-আক্রান্ত কোষ শরীরে অন্যান্য অংশে ছড়িয়ে পরে।

6স্তন ক্যান্সার হওয়ার কারণ কি কি?

Breast cancer: ব্রেস্ট ক্যান্সার বা স্তন ক্যান্সার, কী লক্ষণ দেখে বোঝা যাবে? কীভাবে সাবধান হবেন
স্তন ক্যান্সার হওয়ার কারণ কি কি?

আরও পড়ুন- Beauty Tips : জেনে নিন ত্বকের ফাটা দাগ দূর করার দুর্দান্ত কিছু উপায়, রইল বিস্তারিত ঘরোয়া টোটকা

বিভিন্ন কারণে এই রোগ মহিলাদের শরীরে থাবা বসাতে পারে। যদিও পুরুষদের স্তন ক্যান্সার হওয়া একেবারে অসম্ভব তেমনটা কিন্তু নয়। তবে মহিলাদের মধ্যেই এই রোগের সংখ্যা বেশি।মানুষের স্তনের মধ্যে থাকা কোষগুলি যদি হঠাৎ করে নিয়ন্ত্রণের বাইরে বাড়তে শুরু করে, তখন এই ক্যান্সারের উৎপত্তি হয়।প্রধানত মাতৃ দুগ্ধ উৎপাদনে যুক্ত কোষেই (milk ducts এর আস্তরণ-কারী কোষ এবং lobules) এই প্রকার ক্যান্সার বেশি দেখা যায়।

সেই কারনে মহিলারাই এই রোগে সর্বাধিক আক্রান্ত হন।স্তনের মধ্যে থাকা বিভিন্ন কোষগুলির অতিরিক্ত বেড়ে ওঠার কারনে শরীরে স্তনের আকার বা আকৃতির পরিবর্তন হয়। স্তনের অভ্যন্তরে মাংসল পিণ্ডের (lump) আকার অনুভূত হয়। যদিও যেকোনো পিণ্ডের মতন আকার স্তনের মধ্যে অনুভব করা মানেই ক্যান্সার হয়েছে এটা বলা যায় না। এটি একটি সাধারণ tumor ও হতে পারে। তাই আগে আপনাকে জেনে নিতে হবে যে এটি সাধারণ টিউমার না ক্যান্সার! অবশ্যই তাই এরকম কোন সমস্যা বোধ করলে প্রথমেই ভালো কোন চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে ভুলবেন না।

5স্তন ক্যান্সার কত প্রকারের হয়ে থাকে?

স্তন ক্যান্সার কত প্রকারের হয়ে থাকে?
স্তন ক্যান্সার কত প্রকারের হয়ে থাকে?

স্তন ক্যান্সার অনেক প্রকারের হয়ে থাকে তবে বিশেষ পাঁচটি প্রকার যা খুব বেশি লক্ষ্য করা যায় মহিলাদের মধ্যে তা নিয়ে আজকের প্রতিবেদনে বলবো

  • Infiltrating (invasive) ductal carcinoma – এই অত্যন্ত সাধারণ স্তন ক্যান্সার। এর সূচনা হয় স্তনের দুগ্ধ-নালি তে।
  • Ductal carcinoma in situ – একে পর্যায়-০ বা প্রি-কান্সারউস পর্যায়ের স্তন ক্যান্সার বলা হয়। এই অবস্থায় চিকিৎসা করলে রোগ সফল ভাবে নির্মূল করা সম্ভব
  • Infiltrating (invasive) lobular carcinoma – অন্তত 10% থেকে 15% স্তন ক্যান্সার এই প্রকারের হয়। এর উৎপত্তি স্তনের দুগ্ধ উৎপাদক কোষ (lobules) গুলি তে হয়ে থাকে।
  • Lobular carcinoma in situ – এটিও প্রি-কান্সারউস পর্যায়ভুক্ত। এই অবস্থা থেকে ম্যালিগন্যান্ট স্তন ক্যান্সারে পরিবর্তন হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।
  • Triple negative breast cancer – সাধারণ ভাবে 15% স্তন ক্যান্সার এই প্রকারের হয়। এই প্রকারের নির্ণয় এবং সফল চিকিৎসা অত্যন্ত দুরহ।

আরও পড়ুন- Blood Pressure : উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ রাখতে অবশ্যই মেনে চলুন এই ঘরোয়া টোটকা, শরীর থাকবে সম্পূর্ণ সুস্থ

4স্তন ক্যান্সারের বিশেষ কিছু লক্ষণ কি কি?

স্তন ক্যান্সারের বিশেষ কিছু লক্ষণ কি কি?
স্তন ক্যান্সারের বিশেষ কিছু লক্ষণ কি কি?

স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত মহিলাদের শরীরে কিন্তু অবশ্যই বিশেষ কিছু লক্ষণ প্রকাশিত হয়ে থাকে। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো – স্তনের কোন কোন অংশ ফুলে যাওয়া,স্তনের আকার পরিবর্তন,অভ্যন্তরে কোন পিণ্ডের অস্তিত্ব অনুভূত হওয়া,স্তন বা স্তন বৃন্ততে ব্যথা,স্তনের বোঁটা বা ত্বক লালচে-শুষ্ক হয়ে যাওয়া,স্তন থেকে সাদা তরল (স্রাব) বা রক্ত মিশ্রিত তরল বেরিয়ে আসা , বাহুর নিচে বা কণ্ঠার হাড়ের কাছে ফোলা অনুভূত হওয়া সহ প্রভৃতি।

3স্তন ক্যান্সারের কি কি বিশেষ কারণ রয়েছে?

নির্দিষ্টভাবে এর কোন কারণ নেই তবে নানান রকম বিষয়ের উপর ভিত্তি করে মহিলাদের মধ্যে স্তন ক্যান্সারের প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়।

  1. বয়স এবং লিঙ্গ – ৫০ ঊর্ধ্ব মহিলাদের মধ্যে স্তন ক্যান্সারের প্রবণতা বেশি।
  2. জেনেটিক্স বা বংশ-গত কারনেও স্তন ক্যান্সারের প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়।
  3. নিয়মিত এবং অতিরিক্ত ধূমপান এবং মদ্যপান এই ক্যান্সারের অন্যতম একটি কারণ।
  4. শরীরে মেদবাহুল্যতা,তেজস্ক্রিয় বিকিরণ অথবা হরমোন থেরাপির পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কারণেও কিন্তু এই রোগ হতে পারে।

আরও পড়ুন- একবার খেয়ে দেখুন এই বিশেষ জিনিস, সহবাসের আগে আর প্রয়োজন হবে না অন্য ট্যাবলেট খাওয়ার!

2স্তন ক্যান্সারের প্রতিকার:

যদি আপনাদের শরীরেও এই মারণব্যাধি হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে কিন্তু চিকিৎসার পাশাপাশি কিছু বিশেষ জিনিস আপনাকে মেনে চলতে হবে। চলুন সেগুলিও জেনে নেওয়া যাক।

  1. অবশ্যই মদ্যপান সীমাবদ্ধ করুন। অতিরিক্ত মদ্যপানের সাথে সাথে স্তন ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়। তাই এটি থেকে বিরত থাকুন।
  2. যে কোনও ধরনের তামাক জাতীয় পদার্থের নেশা বন্ধ করুন। এটি আমাদের শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকর।
  3. শরীরের ওজন একটি স্বাস্থ্যকর স্তরে ধরে রাখুন। মেদ বাহুল্যতা বর্জন করুন। অনেক সময় কিন্তু অতিরিক্ত মেদের কারণেও এই জাতীয় রোগ হতে পারে।
  4. শারীরিকভাবে সক্রিয় থাকুন। নিয়মিত যোগ, ব্যায়াম ও শরীর চর্চার অভ্যাস করুন।
  5. শিশুদের বুকের দুধ খাওয়ান। এতে স্তন ক্যান্সারের সম্ভবনা হ্রাস পায়।

1স্তন ক্যান্সারে কি খাবার খাওয়া উচিত?

স্তন ক্যান্সার যদি আপনাদের শরীরে আক্রমণ করে সেক্ষেত্রে কিন্তু খাবার-দাবারের ক্ষেত্রেও আপনাদের বিশেষ কিছু নিয়ন্ত্রণ বজায় রাখতে হবে। এই সময়ে আপনাকে দৈনন্দিন খাদ্যাভাসে রাখতে হবে প্রচুর পরিমানে তাজা শাক-সবজি এবং ফল। যতটা সম্ভব সুষম আহার খাদ্য হিসেবে গ্রহণ করবেন।সারাদিনে প্রচুর পরিমাণে জল খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে (অন্তত ৩-৪ লিটার)। বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্যের মাধ্যমে ভিটামিন ডি এবং ক্যালসিয়ামের যথেষ্ট জোগান‌ নিজেদের শরীরে ধরে রাখতে হবে।

আরও পড়ুন- Weight Loss Tips: পুজোর আগেই সহজে কমিয়ে ফেলুন অতিরিক্ত মেদ, জেনে নিন ১০ টি উপায়!