Health Tips : আর করতে হবে না কোনো চিন্তা! জেনে নিন সহজেই ওজন কমানোর (Weight Loss) বিশেষ কিছু উপায়

2
124
আর করতে হবে না কোনো চিন্তা! জেনে নিন সহজেই ওজন কমানোর (Weight Loss) বিশেষ কিছু উপায়
Weight Loss

বর্তমান যুগে কমবেশি অনেক মানুষের মধ্যেই কিন্তু অতিরিক্ত ওজন বৃদ্ধির প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়। অনেকেই হয়তো নানান রকম ভাবে ওজন কমানোর (Weight Loss) চেষ্টা করে থাকেন এবং ফলস্বরূপ নানান সমস্যায় ভোগেন। তাই আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা সেই সব মানুষদের জন্য নিয়ে চলে এসেছি কয়েকটি টিপস। এর জন্য আপনাদের দৈনন্দিন রুটিনে কিছু সহজ পরিবর্তন আনতে হবে। এই পরিবর্তনগুলি আনলেই আপনি খুব সহজে সক্ষম হবেন ওজনকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে।

জেনে নিন সহজেই ওজন কমানোর (Weight Loss) বিশেষ কিছু উপায়

Weight Loss Tips
Weight Loss Tips

হয়তো আপনি মনে করতেই পারেন যে weight loss এর জন্য আজ আমি আপনাদের জিমে অসংখ্য ঘন্টা ব্যয় করার কথা বা একটি কঠোর ডায়েট অনুসরণ করতে বলবো! কিন্তু তা একেবারেই নয়। আজ আমি আপনাদের সাথে দ্রুত ওজন কমানোর এবং পেটের চর্বি কমানোর কিছু পদ্ধতি শেয়ার করব যা জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। সুতরাং আপনিও যদি এই সমস্যাগুলোর মুখোমুখি হয়ে থাকেন তাহলে আজকের এই বিশেষ কয়েকটি উপায় ভুল করেও মিস করবেন না।

১. স্বাস্থ্যকর জীবন যাপন:

weight loss এর জন্য আপনাকে শরীরকে সঠিক পুষ্টির সাথে খাওয়াতে হবে এবং ফাস্টফুড এড়িয়ে চলতে হবে। লিসা ইয়াং নামের একজন পুষ্টিবিদ জানিয়েছেন, “ওজন কমানোর জন্য আপনাকে তৈরি করতে হবে একটি ক্যালরির ঘাটতি। ক্যালরির ঘাটতি আপনার শরীরকে ক্যালরি ব্যয়কে সমর্থন করার জন্য প্রয়োজনের তুলনায় কম ক্যালোরি সরবরাহ করছে। তাই অবশ্যই এগুলো নিয়ন্ত্রণের অভ্যাস করুন এবং পরিমিত পরিমাণে আরো চর্বিযুক্ত খাবার বেছে নিন।

2. প্রচুর পরিমাণে জল পান করুন:

দিনের যেকোনো সময়েই কিন্তু জল আপনার সেরা বন্ধু হতে চলেছে তাই অবশ্যই এই টোটকাটি মিস করবেন না।weight loss এর জন্য জল কিন্তু অপরিহার্য কারণ এটা আপনাকে ডিহাইড্রেট করতে পারে। বিশেষ করে যখন আপনি ওয়ার্কআউট করবেন তখন জল খুবই কার্যকরী। তবে অবশ্যই আপনি জল পান করার সময় সোডা এড়িয়ে যাবেন। অ্যান্থনি লেন্টি নামের একজন পুষ্টি বিশেষজ্ঞ জানিয়েছেন,”জল মানুষের অঙ্গ গুলোকে আরো দক্ষতার সাথে চালায় এবং ত্বক চুল নখ এবং সামগ্রিক পুনরুদ্ধারের জন্য বিস্ময়কর কাজ করে”।

৩. জলের সঙ্গে লেবু রাখুন:

জল পান করার সময় সামান্য পরিমাণে লেবু যোগ করাও একটা দারুন উপায় হতে পারে আপনার জন্য। গবেষণা পরামর্শ দেয় যে লেবুর পলিফেনাল ওজন বৃদ্ধি দমন করতে পারে এবং আপনার শরীরের অতিরিক্ত চর্বি জমতে বাধা দেয়। তাই অবশ্যই এবার থেকে জল পান করার সময় কিছুটা লেবু যোগ করে দিন এতে আপনার ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকবে পাশাপাশি খেতেও ভালো লাগবে।

৪. উদ্বেগ মুক্ত থাকুন:

যারা নিজের ওজন নিয়ে চিন্তায় রয়েছেন তাদের জানিয়ে রাখি চিন্তা করা বা অতিরিক্ত উদ্বেগের কারণে আপনি কিন্তু বিপদে পড়তে পারেন।weight loss এর জন্য যতটা সম্ভব নিজেকে চিন্তাভাবনা মুক্ত রাখুন। অ্যান্থনি লেনটি জানিয়েছেন “কটিসল হলো এমন একটি হরমোন যা আমাদের শরীরের চাপের প্রতিক্রিয়া নিয়ন্ত্রণ করে এবং শরীরের বিপাককে নিয়ন্ত্রণ করে”। তাই অবশ্যই যতটা সম্ভব চিন্তা মুক্ত থাকুন এবং যোগ ব্যায়াম বা ধ্যান করার সাহায্য নিন।

৫. খাবার ট্র্যাক করুন:

weight loss এর জন্য এই উপায়টি বেশ অদ্ভুত শোনালেও এটা কিন্তু অবিশ্বাস্যভাবে উপকারী হতে পারে। আপনি কত ক্যালোরি গ্রহণ করছেন তা না জানলে আপনার পরিস্থিতির কোন পরিবর্তন হবে না তাই অবশ্যই এটিকে ট্র্যাক করার চেষ্টা করুন। সপ্তাহের ভিত্তিতে এটি করতে পারেন। দেখবেন অনেকটাই weight নিয়ন্ত্রণে আসবে।

৬. কিছু বিশেষ পরিবর্তন:

ওয়ার্ক আউট করা ছাড়াও আপনি কিছু আলাদা ধরনের উপায় খুঁজুন যাতে ক্যালরি কমানো যেতে পারে।weight loss করার জন্য লিফট এর পরিবর্তে সিঁড়ি বেছে নিন, কাজের জায়গা থেকে বেশ খানিকটা দূরে গাড়ি পার্ক করুন যাতে হেঁটে যেতে হয়। বড় কোনো কাজ না করেও কিন্তু ওজন কমানোতে ভূমিকা পালন করা যেতে পারে এসবের সাহায্যে।

৭. যোগ ব্যায়াম করুন:

ফিটনেস এর জন্য যোগ ব্যায়াম একটা ভীষণ কার্যকরী ভূমিকা পালন করে। আপনি চাইলে গ্রুপ ক্লাসে অংশগ্রহণ করতে পারেন যেখান থেকে কিন্তু ফিটনেস এর পাশাপাশি আপনি ভালো বন্ধুর ও খোঁজ পাবেন। যা একই সাথে আপনাকে ওজন কমানো এবং মন ভালো রাখতে সাহায্য করবে।

৮. উচ্চ প্রোটিনযুক্ত খাবার:

আপনার বর্তমান খাদ্যে চর্বি এবং কার্বোহাইড্রেট বেশি এবং প্রোটিনের তুলনায় পাতলা হতে পারে। আপনার প্রোটিন বাম্পিং একটি কঠিন উপায়। এটি ফিরে পেতে গ্রিক দই, ডিম,স্যামন এবং অঙ্কুরিত টফুর মত পেটের চর্বি কমাবে এমন খাবারের সাহায্য নিন।

৯. ওজনের সঙ্গে ঘুমের যোগাযোগ:

অনেকেই হয়তো জানেন না যে ওজন বৃদ্ধির সঙ্গে ঘুমের একটি গভীর যোগাযোগ রয়েছে। সমস্ত টোটকা ফলো করার পাশাপাশি আপনাকে কিন্তু weight loss করার জন্য একটি পর্যাপ্ত ঘুমের সময় নির্ধারণ করতে হবে যাতে সঠিক পরিবর্তন দেখতে পান।

১০. খাবারের সামঞ্জস্য:

সকালের জলখাবার বা দুপুরের খাবারের জন্য আপনি কার্বোহাইড্রেট যুক্ত খাবার নিতে পারেন। তবে রাতের খাবারে কম কার্বোহাইড্রেট সহ খাবার নিন যদি আপনি রাতের খাবারের আগে বা পরে কাজ না করেন। এই প্রক্রিয়াটি কিন্তু আপনার ওজন কমানোর ফলাফলে একটা বড়সড়ো পার্থক্য আনবে তাতে কোন সন্দেহ নেই।

১১. সূর্যালোকের সংস্পর্শ:

অদ্ভুত শোনালেও weight loss এর জন্য সূর্যের উষ্ণ রোশনি কিন্তু দারুন কাজ করে। নর্থ ওয়েস্টার্ন মেডিসিনের একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে ব্যক্তিরা সকালে সূর্যের আলোর সম্পর্কে এসেছেন তাদের শরীরের ভরসূচক উল্লেখযোগ্যভাবে কম ছিল যারা দিনের পরে সূর্যালোকের সংস্পর্শে এসেছেন তাদের।

১২. পরিমাণ অনুযায়ী ফল খান:

আপনি যদি পেটের চর্বি ঝরাতে চান এবং দ্রুত ওজন কমাতে চান তাহলে বেশি ফল খাওয়া গুরুত্বপূর্ণ। ফল প্রাকৃতিক ফাইবারের একটি চমৎকার উৎস যা আপনাকে দীর্ঘ সময়ের জন্য পরিপূর্ণ রাখবে।। ফাইবার আপনাকে পূর্ণ বোধ করতে সাহায্য করে এবং ওজন কমানোর জন্য এটি ভীষণভাবে কার্যকরী।

১৩. খাবার চিবিয়ে খান:

পুষ্টিবিদ ভ্যান হাগান জানিয়েছেন ওজন কমানোর জন্য অবশ্যই সঠিকভাবে খাবার চিবিয়ে খাওয়া উচিত। মানুষের লালায় একটি গুরুত্বপূর্ণ এনজাইম বা উৎসেচক রয়েছে যা খাদ্যকে ভেঙে ফেলতে এবং তন্ত্রকে আরো পুষ্টিকর করতে সাহায্য করে। তাই সঠিকভাবে খাদ্যদ্রব্য যদি আপনি চিবিয়ে খান সেক্ষেত্রের দ্রুত weight loss হবে এবং আপনাদের শরীরের কোন ক্ষতিও হবে না।।